বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের পক্ষ থেকে ইফতার সামগ্রী বিতরণ

দৈনিক পল্লীকন্ঠ দৈনিক পল্লীকন্ঠ

সত্য অবিচল,দৃঢ় প্রত্যয়ে

প্রকাশিত: 11:51 PM, April 10, 2021

স্টাফ রিপোর্টারঃ  “গরীব-দুঃখী ও মেহনতী মানুষের সেবা এবং সামাজিক কল্যাণ সাধণ করে একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের উদ্দেশ্যে পবিত্র মাহে রমাদান উপলক্ষে বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইন ইউকের পক্ষ থেকে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

আজ ১০ এপ্রিল (শনিবার) বেলা ১২ ঘটিকায় বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমদ কোরেশী সাজুর সার্বিক ব্যবস্হাপনায় মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার হত দরিদ্র একটি গ্রামে কুঁড়ি’টি দিনমজুর পরিবারের মধ্যে বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও সংবাদকর্মী চৌধুরী মোহাম্মদ মেরাজের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এগুলো বিতরণ করা হয়। ইফতার সামগ্রীতে প্রায় হাজার টাকা মূল্যমানের চাল, ছোলা, সোয়াবিন তৈল, পেঁয়াজ, চিনি ও সেমাই ছিল।

এই মহতি কার্যক্রমের বিষয়ে জানতে চাইলে, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও কমিউনিটি লিডার বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সেক্রেটারী সাব্বির আহমদ কোরেশী সাজু জানান, আমাদের গর্বিত পিতা মরহুম বদরুজ্জামান কোরেশীর নামানুসারে ‘ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট’ একটি পারিবারিক চ্যারিটি অর্গানাইজেশন ।

এই ট্রাস্টের পক্ষ থেকে আমরা আমাদের পারিবারিক সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতায় আর্ত-মানবতার সেবা ও সমাজ উন্নয়নে কাজ করে যেতে চাই। পাশাপাশি দেশের গরীব-দুখী ও মেহনতি মানুষের সেবা করে একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই হচ্ছে বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের অন্যতম উদ্দেশ্য বলে জানান বদরুজ্জামান কোরেশী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট সমাজসেবক ছয়ফুর রহমান কোরেশী (হিরো) ।

উল্লেখ্য যে, বদরুজ্জামান কোরেশী ছিলেন রাজনগর মশোরিয়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের কৃতি সন্তান। তিনি একজন শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক এবং সাদা মনের মানুষ ছিলেন। জীবদ্দ্যশায় তিনি সমাজ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। মশোরিয়া দাখিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা সহ নানা ক্ষেত্রে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ৪ছেলে ও ৩মেয়ের জনক ছিলেন। সকল ছেলেমেয়ে স্ব-স্ব ক্ষেত্রে সুপ্রতিষ্ঠিত ও সুহ্রদয়বান দীর্ঘদিন ধরে সকলে পারিবারিক ভাবে যুক্তরাজ্যে বসবাস করে আসছেন। বদরুজ্জামান কোরেশী তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে দেশে ২০২০ সালে ইহলোক ত্যাগ করেন।