নবীগঞ্জে আউশকান্দি ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী মন্টু চৌধুরী নির্বাচনী ইশতেহার।

Sheikh Sheikh

Muhaiminur Rahman

প্রকাশিত: 9:47 AM, November 27, 2021

মিলাদ হোসেন সুমনঃ নবিগঞ্জঃ সম্মানিত আউশকান্দি ইউনিয়নবাসী সালাম ও শুভেচ্ছা গ্রহন করুন। আসন্ন ৫নং আউশকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস মার্কায় আমি একজন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। আপনাদের আন্তরিক সহযোগীতা, দোয়া ও ভালবাসায় আমি কৃতজ্ঞ। আউশকান্দি ইউনিয়নবাসী যে আবেগ ও আন্তরিকতায় গতানুগতিকতার পরিবর্তনের লক্ষ্যে আমাকে গ্রহন করেছেন আমি তা উপলব্ধি করছি। আমার উপলব্ধি থেকে বলছি আপনারা যদি আমাকে আনারস মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করেন, তাহলে আমি সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ আইন অনুযায়ী ৫নং আউশকান্দি ইউনিয়নকে ঢেলে সাজাবার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

সম্মানিত ইউনিয়নবাসী দেশের শতকরা ৮০ ভাগ লোক গ্রামে বসবাস করে। গ্রামই আমাদের প্রান। দেশের উন্নয়নের মুল চালিকা শক্তি। তৃণমুলের এই উন্নয়নের মুল দায়িত্ব পালন করে ইউনিয়ন পরিষদ। আমি চাই মাষ্টার প্ল্যানের আওতায় ৫নং আউশকান্দি ইউনিয়নকে একটি আদর্শ ইউনিয়নে পরিণত করতে। আল্লাহর রহমতে আপনাদের ভোটে আমি নির্বাচিত হলে সকলের সমন্বয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিম্নলিখিত পদক্ষেপ গ্রহন করব।
শিক্ষাঃ মেধাবী, গরীব শিক্ষিত ছেলে-মেয়েরা প্রাথমিক শিক্ষা, মাধ্যমিক শিক্ষা ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে লেখাপড়া করতে পারে সেজন্যে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্তা করা। মহিলাদের স্বাবলম্বী করে তুলতে সেলাই প্রশিক্ষণ এবং সেলাই মেশিন নিজে উদ্যোগে প্রধান করা।
স্বাস্থ্যঃ ইউনিয়নের সকল দাতব্য চিকিৎসালয়ে ডাক্তার, কম্পাউন্ডার, নৈশপ্রহরীসহ সকল কমিউনিটি ক্লিনিকের ঔষধের ব্যবস্হাকরণ। শতভাগ স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্হাকরণ। বিশুদ্ধ পানির চাহিদা পুরণের জন্য অস্বচ্ছল পরিবারসহ সাধারণের জন্য টিউবওয়েল এর ব্যবস্হাকরণ।
পরিবেশঃ গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান, প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার এই উদ্যোগকে সামনে রেখে ইউনিয়নের রাস্তাঘাটের দুই পাশে, স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার ফাকা জায়গায় বৃক্ষ রোপন করে পরিবেশ রক্ষা কর্মসূচি গ্রহন করা। জলাবদ্ধতা দুর করার জন্য বাজার, স্কুল,কলেজ ও মাদরাসার নতুন করে উপজেলা ও স্হানীয় সংসদ সদস্যের সাথে আলোচনার মাধ্যমে জলাবদ্ধতা দুর করণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণকরণ।
নিরাপত্তাঃ স্কুল, মাদরাসা ও কলেজগামী শিক্ষার্থীরা যাতে সামাজিক নিরাপত্তা (ইভটিজিং) এর হাত থেকে রক্ষা পায় সে জন্য সামাজিক ক্ষেত্র তৈরি করা ও সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি আইনী সহযোগীতা প্রদান করা। ইউনিয়নের সকল হাট বাজারে আনসার, ভিডিপি নিযোগ করে বাজারের ব্যবসায়ীরা যাতে নির্বিঘ্নে ব্যবসা করতে পারে সে ব্যবস্হা করা। মাদককে না বলুন, শিক্ষিত, বেকার ছেলেরা যাতে মাদকাসক্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা।যেমন- ফুটবল, ক্রিকেট, হাডুডু খেলায় উদ্বুদ্ধ করা যাতে ইউনিয়নের যুবকদেরকে মাদকশক্তির হাত থেকে বাচানো যায়।