শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় সতন্ত্র প্রার্থী মহসিন মিয়া মধুর বিজয়, নৌকার পরাজয়

Sheikh Sheikh

Muhaiminur Rahman

প্রকাশিত: 11:33 PM, November 28, 2021

বিশেষ প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ৩য় দাপে, আজ ২৮ নবেম্বর ২০২১  মৌলভীবাজার জেলায় বড়লেখা ও কুলাউড়া উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও শ্রীমঙ্গল উপজেলায় শ্রীমঙ্গল পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী, ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৩২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী সংরক্ষিত  ৩ টি ওয়ার্ডে ১২ জন মহিলা কাউন্সিলর ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়ে আজ ২৮ নবেম্বর ২০২১ সকাল ৮ ঘটিকা হইতে বিকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই একটানাভাবে ইলেকট্রনিকস ভোটিং মেশিন EVM এ ভোট গ্রহণ করা হয়।

মৌলভীবাজার জেলা নির্বাচন কমিশন, জেলাপ্রশাসন, জেলা পুলিশ প্রশাসন সহ নির্বাচনে সংসৃষ্ট প্রশাসনিক দফতরের কর্মকর্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে একটি অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন উপাহার দিয়ে, মৌলভীবাজার জেলার মানুষের মধ্যে ভোটের প্রতি যে অনাগ্রহ ছিল সটা কিছুটা হলেও দুর হয়ে মানুষের মধ্যে ভোটের আমেজ ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছেন বলে এ প্রতিবেদক মনে করে। মৌলভীবাজার জেলায় নির্বাচনকে অবাধ ও নিরপেক্ষ রাখতে জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান ও জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া এবং জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ভোট গ্রহণের শুরু থেকে ভোট গ্রহণের শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় প্রতিটি ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণে মাঠে ছিলেন।

মৌলভীবাজার জেলার সংবাদ কর্মীদের নির্বাচন পর্যবেক্ষণ ও তথ্য সংগ্রহে নির্বাচনী এলাকায় অবাদ বিচরণ থাকায়, ভোটার বা প্রার্থীদের ধারণায় ছিল যেখানে সাংবাদিক আছে সেখানে অনিয়ম বা কারচুপি না হয়ার সম্ভবনা রয়েছে। মানুষের এমন ধারণাকে আরো দৃঢ় বিশ্বাসে রূপ দেয় ৩য় ধাপে মৌলভীবাজার জেলার ইউনিয়ন ও পৌরসভার নির্বাচনে।

ভোট গ্রহণের শুরুতে সকালের দিকে প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ ভোট প্রদান করেন। আওয়ামী লীগ  মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী অধ্যক্ষ সৈয়দ মনসুরুল হক শহরের চন্দ্রনাথ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মহসিন মিয়া (মধু) উদয়ন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন। শ্রীমঙ্গল পৌরসভা নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)-এর মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে ৯টি ওয়ার্ডের ১১টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়।

দীর্ঘ লড়াই শেষে শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় যারা বিজয়ী হয়েছেন তারা হলেন,

মেয়র পদে সতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মহসিন মিয়া (মধু) নারিকেল গাছ প্রতিকে ৪৫৭ ভোট বেশি পেয়ে মেয়র পদে নির্বাচিত হন, তিনি ৫৯৮৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন

তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্ধি নৌকা প্রতীকের অধ্যক্ষ সৈয়দ মনসুরুল হক পেয়েছেন ৫৫৩২ এবং আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ আছাদ উদ্দিন আহমদ মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২২১ ভোট।

সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হন,

১নং ওয়ার্ড : মো. আলকাছ মিয়া

২নং ওয়ার্ড : মো. আব্দুল জব্বার আজাদ

৩নং ওয়ার্ড : মো. হানিফ চৌধুরী

৪নং ওয়ার্ডে মো. জাহাঙ্গীর আলম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

৫নং ওয়ার্ড : মসুদুর রহমান মসুদ

৬নং ওয়ার্ড : কাজী আব্দুল করিম

৭নং ওয়ার্ড : মীর এম এ সালাম

৮নং ওয়ার্ড : মো. ছাদ উদ্দিন

৯নং ওয়ার্ড : চয়ন রায়

সংরক্ষিত কাউন্সিলর (মহিলা) 
১নং ওয়ার্ড : তানিয়া আক্তার

২নং ওয়ার্ড : রোকেয়া পারভীন

৩নং ওয়ার্ড : শারমিন জাহান

এবারের বিজয়ী সকল জন প্রতিনিধিকে পল্লীকণ্ঠ পরিবারের পক্ষ থেকে অভিনন্দন যানাই।

ভোট গ্রহণের শুরু থেকে পল্লীকণ্ঠের প্রতিনিধিরা নির্বাচনী প্রতিটা এলাকায় সরেজমিন পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ করে বেশ কিছু ভোট কেন্দ্রে দেখা যায়  পুরুষ ভোটারদের তুলনায় নারী ভোটারদের উপস্থিতি ব্যাপক। ভোটাররা বেশ স্বাচ্ছন্দে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দিয়েছেন। নির্বাচনে ভোটাদের নিরাপত্তাসহ সার্বিক ভাবে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিটি কেন্দ্রে জেলা পুলিশের পাশাপাশি র্যাব (RAB) ও বিজিবির টহল ছিলো জোরদার।